১৯শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৩ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

রাস্তার দাবিতে ঝিনাইদহের নতুন কোর্টপাড়ার বাসিন্দাদের হাহাকার

অভিযোগ
প্রকাশিত সেপ্টেম্বর ১২, ২০২৩
রাস্তার দাবিতে ঝিনাইদহের নতুন কোর্টপাড়ার বাসিন্দাদের হাহাকার

ঝিনাইদহ জেলা প্রতিনিধি:ঝিনাইদহ সদর উপজেলার পৌরসভার অন্তর্গত ৫ নং ওয়ার্ড এর নতুন কোর্টপাড়ার মোজাদ্দেদিয়া সড়কের বাসিন্দাদের কাচা রাস্তা দিয়ে চলাচলের জন্য দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।রাস্তাটি মাটির হওয়ায় বৃষ্টি হলেই পানি জমাট বাঁধে এবং পানি নিষ্কাশনের সু্ব্যাবস্থা না থাকায় অল্প বৃষ্টিতে অনেক বাড়িঘরের সামনে পানি জমাট বেঁধে থাকে।

বিভিন্ন স্থানে যাওয়ার একমাত্র রাস্তাটি কাঁচা। এটি পাকা করার দাবি দীর্ঘদিনের। বৃষ্টি হলে এ রাস্তায় চলাচলকারী মানুষকে অবর্ণনীয় দুর্ভোগের শিকার হতে হয়। স্থানীয় লোকজনের অভিযোগ, স্থানীয় প্রকৌশল অধিদপ্তর কর্মকর্তা ও মেয়রের সু-দৃষ্টি অবহেলা ও অনাগ্রহের কারণে এই রাস্তা পাকা হয়নি। এ কারণে এই দীর্ঘ ১ কি.মি কাচা রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে গিয়ে প্রতিদিন মানুষ ভোগান্তির শিকার হচ্ছে।
স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, পৌরসভার অন্তর্গত পাঁচ নং ওয়ার্ড ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রাণকেন্দ্র হিসেবে পরিচিত।সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ে পড়াশোনা করা ছেলেমেয়েরা, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা, বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ এই কাচা রাম্তা দিয়ে যাতায়াত করেন। অধিকাংশ মানুষ স্থানীয় বিভিন্ন শিল্পকারখানায় কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করেন।বৃষ্টি হলে কাঁচা রাস্তায় কাঁদাপানি জমে থাকে। তখন রিকশা ও সিএনজিচালিত অটোরিকশা চলতে পারে না।

এ বিষয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের সাথে কথা বললে তাদের মধ্যে মোঃ
ইমরান হোসেন বলেন, “আমি মাঝে মাঝে সত্যিই খুব অবাক হই এটা দেখে যে, আমাদের মহল্লা শহরের প্রান কেন্দ্রের সর্ব্বোচ্চ নিকটতম। যেখান থেকে পায়ে হেটেই মাত্র 5 মিনিট লাগেনা ঝিনাইদহের প্রান কেন্দ্রে পৌছাতে। সেই মহল্লার রাস্তা দেখলে যে কেউ কিছু সময়ের জন্য ভেবে বসবেন যে, এ মনে হয় কোন গ্রামের মেঠো পথ। এর থেকে ভালোভাবে আমাদের মহল্লার রাস্তার বিবরন দেওয়ার সক্ষমতা আমার নেই। তাই আমাদের সকলের দাবি এই রাস্তা যতদ্রুত সম্ভব সংস্করন করে আমাদেরকে এই দুর্ভোগ এবং লজ্জা থেকে রক্ষা করুন।”

ভুক্তভোগী মোঃ আকাশ উর রহমান ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, “আমরা নতুন কোর্টপাড়া বাসী রাস্তার জন্য যে পরিমাণ দুর্ভোগে ভুগছি এই পরিমাণ ভোগান্তি আর কোথাও নাই আমাদের মেয়র সাহেব কমিশনার সাহেব আমাদের এই রাস্তায় কাজ নিয়ে কোনরকম মাথায় নাড়ায় না।রাস্তার জন্য আমরা দীর্ঘদিন পৌরসভায় ঘুরেছি মেয়র সাহেবের বাসায় গিয়েছি তিনি আমাদের সাথে সাক্ষাৎ পর্যন্ত করেননি। আমরা চাই মেয়র সাহেব খুব দ্রুতই আমাদের এই রাস্তার কাজটা করুক আমরা ৫ নম্বর ওয়ার্ডবাসীর খুবই কষ্টের ভিতর জীবন যাপন করছি মনে হচ্ছে আমাদের কষ্ট দেখার মত কোন লোক নাই আমরা সুশীল সমাজের দৃষ্টি আকর্ষণ করে আমাদের এই দুর্ভোগ থেকে মুক্তির আশা করছি।”

মোঃ সাহেদুল ইসলাম বলেন,”মহল্লার মধ্যে থেকে গুরুত্বপূর্ণ যে রাস্তাটি শহরের প্রাণকেন্দ্রে গিয়ে মিলিত হয়েছে, রাস্তাটি মাটির হওয়ায় বৃষ্টি হলেই পানি জমাট বাঁধে এবং পানি নিষ্কাশনের সু্ব্যাবস্থা না থাকায় অল্প বৃষ্টিতে অনেক বাড়িঘরের সামনে পানি জমাট বেঁধে থাকে।জমাট বাধা পানির কারণে ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব বৃদ্ধি পাওয়ায় দুশ্চিন্তাগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন পরিবার নিয়ে এবং তিনি আরো বলেন, মাটির রাস্তা হওয়ায় বৃষ্টি হলে রাস্তা চলাচলের অনুপযোগী হয়ে যায় যার ফলে শিশু কিশোরেরা নিরাপদে শিক্ষাঙ্গনে যেতে পারেনা, ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের নামাজ পড়ার ব্যাঘাত ঘটে এককথায় এলাকাবাসী চলাচল করতে পারেনা তারা অতিশীঘ্র এই সমস্যার সমাধান চান।”

ওয়ার্ড বাসীর বিশ্বাস দ্রুততার সাথে মেয়র মহোদয় কাচা রাস্তা পাকা করণের বিষয়টি গুরুত্বসহকারে দেখবেন এবং এই সমস্যা সমাধান করে জনগণকে পরিত্রাণ দিবেন বলে আমরা বিশ্বাস করি।

Please Share This Post in Your Social Media
July 2024
T W T F S S M
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
3031  

বিভাগীয় কমিশনার মোঃ জাকির হোসেন টে‌নিস কম‌প্লেক্স এর উ‌দ্বোধন করছেনঃ স্টাফ রিপোর্টার, শেখ আসাদুজ্জামান আহমেদ টিটু। গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে উপ‌জেলা টে‌নিস কম‌প্লেক্স এর উ‌দ্বোধন করা হ‌য়ে‌ছে। মঙ্গলবার রা‌তে উপ‌জেলা টে‌নিস কম‌প্লেক্স এর শুভ উ‌দ্বোধন করেন রংপুর বিভাগীয় ক‌মিশনার মোঃ জা‌কির হো‌সেন। এ সময় উপ‌স্থিত ছি‌লেন, গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক কাজী নাহীদ রসুল, পলাশবাড়ী উপ‌জেলা প‌রিষদ চেয়ারম‌্যান এ‌কেএম ম্কে‌ছেদ চৌ ধুরী বিদ‌্যুৎ, উপ‌জেলা নির্বাহী অ‌ফিসার কামরুল হাসান,পৌর মেয়র গোলাম সারোয়ার প্রধান বিপ্লব, সহকারী কমিশনার ভুমি মাহমাদুল হাসান, থানার অফিসার ইনচার্জ আজমিরুজ্জামান ছাড়া বিভিন্ন দপ্ত‌রের কর্মকর্তা কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এর আগে তিনি উপজেলা সহকারী কমিশনার ভুমি অফিস পরিদর্শন ও বৃক্ষরোপন করেন।