২৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২১শে জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

বায়তুল মোকাররমে সায়েম সোবহানের সৌজন্যে মাসব্যাপী ইফতার বিতরণ করা হয়েছে

অভিযোগ
প্রকাশিত এপ্রিল ১০, ২০২৪
বায়তুল মোকাররমে সায়েম সোবহানের সৌজন্যে মাসব্যাপী ইফতার বিতরণ করা হয়েছে

শোয়েব হোসেন: রাজধানীর বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদ প্রাঙ্গণে গোটা রমজান মাসব্যাপী সরব ও মুখরিত ছিল ফ্রি ইফতার বিতরণ ও দোয়া মাহফিলে । উক্ত কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হয় বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক, সায়েম সোবহান আনভির এর সৌজন্যে।

জানা যায়, দেশের স্বনামধন্য ও শীর্ষস্থানীয় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক, সায়েম সোবহান আনভির এর আর্থিক সহযোগিতা ও শুভেচ্ছা স্বরূপ এবারের রমজানে ” মাসব্যাপী ইফতার বিতরণ কর্মসূচি-২০২৪” পালিত হয়। উক্ত কর্মসূচির আয়োজন ও ব্যবস্থাপনায় ছিলেন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদ মুসল্লী কমিটি। প্রতিদিন গড়ে অন্তত: তিন হাজার মুসল্লী ইফতার গ্রহণে সারিবদ্ধভাবে বসেন। সবার সামনে সুন্দর ও সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনায় ইফতার সামগ্রী পরিবেশন করে দোয়া মাহফিল পরিচালনা করা হয়। যথাসময়ে ইফতার শেষে সকলে নামাজ আদায় করে বিদায় নেন।

ইফতার ও দোয়া মাহফিলে উপস্থিত বিভিন্ন রোজাদার মুসল্লিগণ সকলে আত্মতৃপ্তির সাথে সায়েম সোবহান আনভীরকে আন্তরিকভাবে ভালোবাসেন ও দোয়া করেন বলে একযোগে জানা গেছে।তারা আরো জানান, সায়েম সোবহান দেশের বহু স্থানে নিয়মিত ভাবে দান খয়রাত করে অগনিত ভক্ত-জনতার অন্তরে দানবীর হিসেবে আখ্যায়িত হয়েছেন ইতিপূর্বেই ।

বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদ মুসল্লী কমিটি কর্তৃপক্ষ জানান, সায়েম সোবাহান একজন উঁচু মাপের জনদরদি, সুন্দর ও স্বচ্ছ মনের মানুষ। গোটা রমজান মাসব্যাপী তার এমন আন্তরিক সহযোগিতা পেয়ে আমরা অতি আনন্দিত ও ধন্য। তার এমন মহত্ব ও অবদান আমরা কিংবা উপস্থিত মুসল্লীগন কখনোই ভুলতে পারবো না। আমরা মনেপ্রাণে দোয়া করি, মহান আল্লাহ পাক তাকে আরও মহান ও সম্মানিত অবস্থানে নিয়ে যাক।সেই সাথে সপরিবারের তার সুস্থ, সুখী জীবন ও দীর্ঘায়ু কামনা করি।

সায়েম সোবহান সম্পর্কে জানা যায়, তিনি দেশের সর্বোচ্চ মানের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, সমাজসেবী ও দানশীল ব্যক্তিত্ব।তাছাড়াও তিনি বাংলাদেশ জুয়েলার্স অ্যাসোসিয়েশন(বাজুস) এর প্রেসিডেন্ট এবং বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদ মুসল্লী কমিটি’র প্রধান উপদেষ্টা।তিনি বহু বছর ধরেই দেশ-জাতির মঙ্গল ও কল্যাণের লক্ষ্যে নানান সেবা কার্যক্রম সুনাম ও সফলতার সাথে পরিচালনা করে আসছেন।একজন সফলকাম,মহানুভব, উদার ও মানবিক ব্যক্তি হিসেবে দেশ ও দেশের বাহিরে তার যথেষ্ট সুনাম-সুখ্যাতি ছড়িয়ে রয়েছে। তিনি বলেন,”ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনার পাশাপাশি দেশ ও জনতার খেদমতে কাজ করা আমাদের পরিবারের প্রাচীন ঐতিহ্য। দুঃখী, দরিদ্র ও অসহায় মানুষের চোখে মুখে হাসি ফোটাতে পারলে আমি অন্তরে স্বর্গীয় সুখ অনুভব ও গর্ববোধ করে থাকি।সকলের কাছে দোয়া চাই যেন আমি আজীবন দেশ ও দশের খেদমত আরো বেশি বেশি করতে পারি”।

Please Share This Post in Your Social Media
May 2024
T W T F S S M
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031