২৬শে মার্চ, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই চৈত্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা রমজান, ১৪৪৪ হিজরি

সেঞ্চুরি করেও সমালোচিত বাবর

editor
প্রকাশিত মার্চ ৯, ২০২৩
সেঞ্চুরি করেও সমালোচিত বাবর

অনলাইন ডেস্ক: আধুনিক ক্রিকেটের যুগ! টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে সেঞ্চুরি করেও যেন রক্ষা নেই। কত বলে সেঞ্চুরি করলেন, সেঞ্চুরি পাওয়ার জন্য শেষদিকে ধীরগতিতে রান তুলেছেন কি না, ডট খেলেছেন কি না, এমন নানা প্রশ্ন ওঠে। গতকাল পিএসএলে যেমন ৬০ বলে সেঞ্চুরি করার পরও বাবর আজমের সমালোচনা করেছেন ধারাভাষ্যকার সাইমন ডুল।

রাওয়ালপিন্ডিতে বুধবার আগে ব্যাটিং করে বাবরের সেঞ্চুরি, সাইম আইয়ুবের ফিফটিতে স্কোরবোর্ডে ২৪০ রান তোলে পেশোয়ার জালমি। তাতেও অবশ্য শেষ রক্ষা হয়নি। জেসন রয়ের ৬৩ বলে অপরাজিত ১৪৫ রানের ইনিংসে ১০ বল বাকি থাকতেই ২৪০ রান টপকে যায় কোয়েটা। পিএসএলে এটাই সর্বোচ্চ রান তাড়ার রেকর্ড।টস জিতে ব্যাটিং করতে নেমে ওপেনার বাবর ও আইয়ু্ব ১৬২ রানের জুটি গড়েন। এই জুটিতে শুরুর দিকে আক্রমণাত্মক ছিলেন আইয়ুব। ৩৪ বলে পাঁচ ছক্কা ও ছয় চারে এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান খেলেন ৭৪ রানের ঝোড়ো ইনিংস। বাবরও যে এদিন ধীরগতিতে ব্যাট করেছেন ব্যাপারটা এমন নয়। ৩২ বলে ৫০ রান করা বাবর ৮০ রান করেন ৪৪ বলে। সেখান থেকে শেষ ২০ রান করতে বাবর খরচ করেন ১৬ বল। ৯৯ রানে ব্যাটিং করার সময়ে ডট বলও খেলেন পাকিস্তান অধিনায়ক। নিউজিল্যান্ডের সাবেক পেসার ও হালে ধারাভাষ্যকার সাইমন ডুলের আপত্তিটা এখানেই। বাবর দলের রানের চেয়ে নিজের সেঞ্চুরিকে গুরুত্ব দিয়েছে এমন ইঙ্গিত করে ডুল বলেছেন, ‘সেঞ্চুরি করা ভালো, পরিসংখ্যান তো দুর্দান্ত কিছুই। কিন্তু এরপরও দলকে সবার আগে রাখা উচিত।’

এর আগে বাবরের সতীর্থ মোহাম্মদ রিজওয়ানকে ধীরগতির ব্যাটিংয়ের কারণে স্বেচ্ছায় আউট হওয়ার পরামর্শ দিয়েছিলেন ডুল। সেই ম্যাচে বাবরের মতো ৬০ বলে সেঞ্চুরি করেন রিজওয়ান। তবে শুরুর দিকে মন্থরগতিতে ব্যাট করছিলেন পাকিস্তানের এই উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান।বাবর চলতি মৌসুমে পিএসএলে তৃতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক (৩৪৩)। তবে পিএসএলে চলতি মৌসুমে শীর্ষ ১০ ব্যাটসম্যানের মধ্যে সবচেয়ে কম স্ট্রাইক রেট তার (১৪০)। ১০ জন সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক ব্যাটসম্যানের মধ্যে বাবর ছাড়া ১৬০ এর নিচে স্ট্রাইক রেট আছে শুধু মোহাম্মদ রিজওয়ানের। ৪২১ রান আর ১৪১.২৭ স্ট্রাইক রেট নিয়ে তালিকার সবার ওপরে রিজওয়ান।

Please Share This Post in Your Social Media
March 2023
T W T F S S M
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031