২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই আশ্বিন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১২ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

মুক্তিযোদ্ধাদের স্বরণে বনগ্রাম গণকবরে বধ্যভূমি স্মৃতিসৌধ নির্মানের জন্য স্থান নির্ধারণ

অভিযোগ
প্রকাশিত সেপ্টেম্বর ২০, ২০২১
মুক্তিযোদ্ধাদের স্বরণে বনগ্রাম গণকবরে বধ্যভূমি স্মৃতিসৌধ নির্মানের জন্য স্থান নির্ধারণ

মুক্তিযোদ্ধাদের স্বরণে বনগ্রাম গণকবরে বধ্যভূমি স্মৃতিসৌধ নির্মানের জন্য স্থান নির্ধারণ।

টাংগাইল নাগরপুর প্রতিনিধিঃ টাংগাইল এর নাগরপুর উপজেলার গয়হাটা ইউনিয়নের বনগ্রাম গ্রামে এই গণকবরটি স্থাপিত হয়। কথিত আছে চারদিকে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন জঙ্গলে ঘেরা একটি গ্রাম। গেরিলা যুদ্ধের কৌশলগত কারণেই মুক্তিযোদ্ধারা এই গ্রামটি বেছে নিয়েছিল। ১৯৭১ সালের ২৩ শে অক্টোবর বনগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মুক্তিসেনাদের ক্যাম্পে অবস্থানরত কয়েকজন মুক্তিসেনা পার্শ্ববর্তী সিরাজগঞ্জ জেলার চৌহালী উপজেলায় অবস্থানরত পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর এক মেজর ও এক সৈনিকে হত্যা করে। এরই ফলশ্রুতিতে পাক-হানাদার বাহিনী ২৫ শে অক্টোবর বনগ্রামে গণহত্যা চালায়। গ্রামের প্রায় প্রতিটি বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে এবং ৫৭ জন মানুষকে হত্যা করে। পরবর্তীতে এই লাশগুলো একই জায়গায় দাফন করে এলাকাবাসী। মূলত তখন থেকেই এর নামকরণ করা হয় বনগ্রাম গণকবর হিসেবে।

বর্তমানে গণকবরের ২০ শতাংশ ভূমির উপর বধ্যভূমি নির্মাণের জন্য স্থানটি চিন্হিত করেন টাঙ্গাইল গণপূর্ত বিভাগের উপ সহকারী প্রকৌশলীঃ এস এম হাসমত আলী, ঠিকাদার উজ্জ্বল হোসেন। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন অত্র গণকবর পরিচালনা কমিটি ও এলাকার সর্বসাধারণ।
উক্ত প্রকল্পের নির্মাণ ব্যায়ঃ ৬০ লক্ষ টাকা।

Please Share This Post in Your Social Media
September 2023
T W T F S S M
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
2627282930