ঢাকা ৩১শে অক্টোবর, ২০২০ ইং, ১৭ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৪ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪২ হিজরী

ঈশ্বরদী উপজেলা পরিষদ উপ-নির্বাচনঃ চেয়ারম্যান পদে আলোচনার আসাদুজ্জামান রিপন

প্রকাশিত October 14, 2020
ঈশ্বরদী উপজেলা পরিষদ উপ-নির্বাচনঃ চেয়ারম্যান পদে আলোচনার আসাদুজ্জামান রিপন
Spread the love

 

মো:ইয়াছিন শেখঈশ্বরদীপ্রতিনিধি: পাবনা-৪(ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া) আসনের সংসদ সদস্য ও সাবেক ভূমি মন্ত্রী এবং পাবনা জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শামসুর রহমান শরীফ ডিলু’র মৃত্যুতে আসনটি শূন্য হয়। গত ২৬ সেপ্টেম্বর এই আসনে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিবকে বিপুল ভোটে পরাজিত করে বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব নুরুজ্জামান বিশ্বাস সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। নুরুজ্জামান বিশ্বাস ঈশ্বরদী উপজেলা পরিষদের নির্বাচিত চেয়ারম্যান ছিলেন।

তিনি এমপি পদে দলীয় প্রার্থী হওয়ায় বিধি মোতাবেক তাঁকে চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত্যাগ করতে হয়। স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী বর্তমানে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম খান। এই চেয়ারম্যান পদেই আগামী ডিসেম্বরের শেষে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে নির্বাচন কমিশনসহ বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে। ইতিমধ্যে আওয়ামীলীগের সম্ভাব্য প্রার্থী ও তাদের সমর্থকরা শুরু করে দিয়েছেন নির্বাচনী তোড়জোড়। সম্ভাব্য প্রার্থী নিয়ে স্থানীয় ও জাতীয় সংবাদপত্র এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন দলের নেতাকর্মীরা তাদের মতামত তুলে ধরে স্ট্যাটাস দিচ্ছেন। চলছে প্রচার প্রচারণা ও চুলচেরা বিশ্নেষণ।
প্রার্থী হয়ে আওয়ামীলীগের এ উপজেলায় আবারও বিজয়ী করতে চান ঈশ্বরদীর তরুণ সমাজসেবক, তরুণ সমাজের প্রিয় মুখ, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ঈশ্বরদী উপজেলা শাখার অন্যতম সদস্য ও সাবেক সফল ভাইস- চেয়ারম্যান মোঃ আসাদুজ্জামান রিপন। তিনি বর্তমানে বেশির ভাগ সময়ই সাধারণ মানুষের সাথে যোগাযোগ করে পার করছেন। তার জনপ্রিয়তার শীর্ষে অবস্থান করছে। মানুষের মুখে-মুখে ছড়িয়ে পড়েছে তাঁর প্রশংসা। বিভিন্ন স্থানে জনসংযোগ ও পথ সভা এবং নতুন করে ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য বিভিন্ন রকমের কর্মসূচি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছেন। তরুণ কর্মীবান্ধব নেতা রিপন নেতাকর্মীকে আরও সক্রিয় এবং নির্বাচনমুখী করার জন্য নেতাকর্মীদের সাথে একান্তভাবে আলাপচারিতায় মিলিত হচ্ছেন।
এ আসনের সাধারণ ভোটার ও দলীয় নেতা কর্মীরা তাকিয়ে আছে কে পাচ্ছেন নৌকা প্রতীক। এ নিয়ে প্রতিটি চা দোকানে ও হাট বাজারে সাধারণ মানুষের মুখে মুখে আলোচনার গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে।
স্থানীয় আওয়ামীলীগর সমর্থিতরা জানান, দল যাকে মনোয়ন দিবে তার জন্য কাজ করে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করবো। তবে আমরা আশা করবো যারা প্রথম থেকে দলের দূর্দিনে, বিপদে আপদে পাশে থাকবে এবং ঈশ্বরদীর জনগনের পাশে থেকে এলাকার জন্য কাজ করবে, এমন প্রার্থীকে মনোনয়ন দেওয়া উচিত বলে আমরা মনে করি। তাহলে ঈশ্বরদী উপজেলা পরিষদে আবারও বিজয়ী হওয়া সহজ হবে।
আওয়ামীলীগের একাধিক নেতাকর্মীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, ঈশ্বরদী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে পরপর তিনবার বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব নুরুজ্জামান বিশ্বাস ও একবার উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মকলেছুর রহমান মিন্টু বিজয়ী হয়েছেন। এটা আওয়ামীলীগের আসন। এ এলাকার মানুষ আওয়ামীলীগকে ভালবাসে। আমাদের বিশ্বাস আসাদুজ্জামান রিপন আওয়ামীলীগ ও মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান, তাঁর বাবা ওহিদুজ্জামান পিন্টু বিশ্বাস সাহাপুর ইউনিয়ন পরিষদের একাধিকবার নির্বাচিত চেয়ারম্যান ও ৭ নং সেক্টেরের কমান্ডার এবং একজন বীরমুক্তিযোদ্ধা ছিলেন, তাঁর মাতা সুফিয়া খাতুন ঈশ্বরদী উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ছিলেন। তিনিও জনপ্রিয় ভাইস চেয়ারম্যান ছিলেন, যেহেতু এলাকায় থেকে তূণমূল নেতাকর্মীদের সাথে যোগাযোগ রাখেন এবং তাদের বিপদের পাশে দাঁড়ান, তাকে মনোনয়ন দিলে ঈশ্বরদী উপজেলা ভোটারা বিপুল ভোট নৌকা মার্কা প্রতীকে বিজয় লাভ করবে।
উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মুরাদ আলী জানান, আসাদুজ্জামান রিপন দুর্দিনে আমাদের পাশে থেকে দলকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য সার্বিক সহযোগীতা করে যাচ্ছেন। ঈশ্বরদী উপজেলা পরিষদ উপনির্বাচনে তাকে মনোনয়ন দেওয়ার জন্য দাবী করছি। আমাদের প্রিয় নেতা আসাদুজ্জামান রিপনকে মনোনয়ন দেওয়া হলে বিজয় শতভাগ সুনিশ্চিত।
দলের মনোনয়ন প্রত্যাশী আওয়ামীলীগ নেতা আসাদুজ্জামান রিপন বলেন, আমি মানুষের সুখে দুঃখে পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছি। আশা করি আমাকে দল মনোনয়ন দিলে নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী হয়ে জনগণের সমর্থন ও ভোটে জয়ী হবো। তিনি মনে করেন আমি নির্বাচিত হলে সততার সাথে সাধারণ মানুষকে সাথে নিয়ে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বির্নিমাণে একজন কর্মী হিসেবে কাজ করে যাবো এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরোপুরি বাস্তবায়নে সহযোগীতা ও তার হাতকে শক্তিশালী করতে পারবো।
উল্লেখ্য.২৬ সেপ্টেম্বর এই আসনে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে বিপুল ভোটে বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব নুরুজ্জামান বিশ্বাস সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। নুরুজ্জামান বিশ্বাস ঈশ্বরদী উপজেলা পরিষদের নির্বাচিত চেয়ারম্যান ছিলেন। এই চেয়ারম্যান পদেই আগামী ডিসেম্বরের শেষে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে নির্বাচন কমিশনসহ বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে। ঈশ্বরদী উপজেলায় মোট ভোট কেন্দ্র ৮৪টি। মোট ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ৫৪ হাজার ৯৭ জন।

অক্টোবর ২০২০
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« সেপ্টেম্বর    
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১