আনোয়ারায় বেড়িবাঁধের অনিয়ম পরিদর্শনে প্রেস ক্লাবের সভাপতি ও স্থানীয় চেয়ারম্যান

প্রকাশিত: ২:১৮ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৫, ২০২০

আনোয়ারায় বেড়িবাঁধের অনিয়ম পরিদর্শনে প্রেস ক্লাবের সভাপতি ও স্থানীয় চেয়ারম্যান

খালেদ মাহামুদ হাসান,আনোয়ারা(চট্টগ্রাম)প্রতিনিধিঃ

আনোয়ারা উপজেলার চাতরী ইউনিয়নের মহতর পাড়া গ্রামে পানি উন্নয়ন বোর্ডের বেড়িবাঁধ নির্মাণের কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ তুলেছেন এলাকাবাসী। বেড়িবাঁধ নির্মাণে ঝুঁকিপূর্ণ পয়েন্টগুলোতে টেকসই বাঁধ নির্মাণের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা না নেওয়া ও পরিকল্পনা অনুযায়ী মুরালি খাল থেকে নির্ধারিত দুরত্ব অনুসরণ না করায় বর্ষা মৌসুমে ভাঙনের মুখে পড়তে পারে নির্মাণাধীন বেড়িবাঁধ এমনটি আশংকা স্থানীয়দের। এ নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভ আর অসন্তোষ সৃষ্টি হয়েছে।

 

স্থানীয় এলাকাবাসীরা জানায়, দীর্ঘ অনেক বছর পর ঝূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত মহতর পাড়া এলাকায় নতুন বেড়িবাঁধ নির্মাণের কথা থাকলেও মুরালি খাল থেকে মাত্র ১০ থেকে ১৫ ফুট দূরত্বে বেড়িবাঁধ নির্মাণ করে যাচ্ছে। জায়গা থাকা সত্বেও খালের এত কাছাকাছি স্থানে বেড়িবাঁধ নির্মাণ করায় বর্ষা মৌসুমে বাঁধে ধ্বস দেখা দিতে পারে। কয়েক কিলোমিটার এলাকাজুড়ে কর্ণফুলি নদীর শাখা শিকলবাহা মুরালি খালের তান্ডবে প্রতিনিয়ত ভাঙ্গন অব্যাহত রয়েছে। এমনিততে এ খাল খরস্রোতা, তার উপর অতিবৃষ্টির পর পাহাড়ি ঢলে স্রোতের তীব্রতা দ্বিগুণ বেড়ে তখন বেড়িবাঁধের অংশ কেবল ভাঙ্গতেই থাকে। অনেক জায়গায় খালের দূরত্ব বজায় না রেখে নতুন বাঁধের পরিবর্তে পুরাতন বেড়িবাঁধটিকে সংস্কার করে যাচ্ছে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে স্থানীয় এলাকাবাসী প্রতিবাদ করেন এবং সঠিকভাবে বেড়িবাঁধ নির্মাণের কাজ না করলে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে বাঁধের কাজ বন্ধ রাখতে বলেন। এবং অনিয়মের বিষয়ে এলাকাবাসীর অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বুধবার সকালে সরজমিনে স্থানীয় লোকজন নিয়ে বেড়িবাঁধ নিমার্ণের কাজ পরির্দশন করেন পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তা, আনোয়ারা প্রেস ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা ও বর্তমান সভাপতি সাংবাদিক আবদুল নুর চৌধুরী ও স্থানীয় চাতরী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইয়াছিন হিরু। তারা বাঁধ নির্মাণের কাজ পরিদর্শন করে অনিয়ম দেখে বাঁধ নির্মাণে খালের থেকে দূরত্ব বজায় রেখে বেড়িবাঁধ নির্মাণ করার জন্য নির্দেশ দেন।

 

এ সময় আনোয়ারা প্রেস ক্লাবের সভাপতি আবদুল নুর চৌধুরী জানান, বেড়িবাঁধের কাজে কোনো ধরনের অনিয়ম, দুর্নীতি বরদাশত করা হবে না। সঠিকভাবে কাজ শেষ না করা হলেও তাদের বিরুদ্ধে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য জানানে হবে।

 

চাতরী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইয়াছিন হিরু জানান, টেকসই বেড়িবাঁধ নির্মাণ এবং খালের পাশে বেড়িবাঁধ নির্মাণ না করার জন্য ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে নির্দেশ দেয়া হয়।

 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে পানি উন্নয়ন বোর্ডের দায়িত্বরত এসও ইঞ্জিনিয়ার ফয়জুল রহমান বলেন, বাঁধ নির্মাণে অনিয়ম দেখা দেয়ায় এলাকাবাসীর অভিযোগে পরিপেক্ষিতে সরকারি নির্দেশনা অনুয়ায়ী খাল থেকে দূরত্বে টেকসই বেড়িবাঁধ নির্মাণ করার জন্য ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

 

এ ছাড়াও পূর্ব দিকে চাতরী কৈনপুরা-মহতরপাড়া পুইয়া খালের ওপর নির্মিত পুরাতন স্রুইস গেইটিতে পানি ভিতর থেকে বের হতে পারে কিন্তু প্রবেশ করার সিস্টেম না থাকায় জোয়ারের সময় খাল থেকে পানি ভিতরে প্রবেশ করতে পারছে না। ফলে পর্যাপ্ত পানির অভাবে রোপণ করা যাচ্ছে না ধানের চারা। এতে হাজারো কৃষক পড়েছেন বিপাকে। ফলে ব্যাহত হচ্ছে উৎপাদন। বিষয়টি জানানো হলে জরুরি ভিত্তিতে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেন পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা।

 

বহু পূর্বে এলাকার পূর্ব দিকে ঝুঁকিপূর্ণ পয়েন্টে আরেকটি এক ভেণ্ঠ স্লুইস গেইট নির্মাণ করার জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ডে স্থানীয় বাসিন্দা সাংবাদিক আবদুল নুর চৌধুরীর আবেদনের পরিক্ষেপ্রতিতে উর্ধ্বতনের কর্তৃপক্ষের অনুমোদনের অপেক্ষায় আছে বলে জানান।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ